আরিফার করোনা যুদ্ধে পাশে আছেন তামিম

115

পিবি ডেস্কঃ আরিফা জাহান বীথি, করোনাযুদ্ধে অংশ নেওয়া একজন যোদ্ধা। তবে তাঁর লড়াই কিছুটা ভিন্ন। এই করোনাকালে গর্ববতী মায়ের জন্য লড়াই করে যাচ্ছেন তিনি। তাঁর শুরুটা ছিল স্কুটি কেনার জমানো টাকা দিয়ে। এরপর একে একে আরিফার পাশে দাঁড়ান রুবেল হোসেন ও তামিম ইকবাল। বাংলাদেশ জাতীয় দলের দুই তারকার সহায়তায় গর্ববতী মায়েদের দ্বারে দ্বারে খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন রংপুরের এই নারী ক্রিকেটার।

গত সোমবার তামিমের ফোন পান আরিফা। তামিমের ফোন পেয়ে খুশিতে আত্মহারা আরিফা এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘আমি প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারিনি আমার মতো একজন খেলোয়াড়কে তারা (ক্রিকেটাররা) ফোন দেবেন। এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। আমার অনেক ভালো লেগেছে এবং আমাকে অনেক অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন। তামিম ভাই ফোন দিয়েছিলেন ৮ জুন। তিনি আমার কাজ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এবং জেনে তিনি অনেক খুশি। আমাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সে সঙ্গে গর্ববতী মায়েদের জন্য উপহার দিয়েছেন তিনি। তামিম ভাই উপহার আজ গর্ভবতী মায়েদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছি।’

আরিফাকে উৎসাহ দিয়েছেন রুবেলও। আরিফার কথায়, ‘রুবেল ভাই আমাকে ফোন দিয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। একজন নারী হয়ে এই কাজ করছি, এর জন্য তারা আমাকে উৎসাহ দিচ্ছেন। তারা পাশে না দাঁড়ালে আমার কাজটি করা অসম্ভব ছিল। তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। এ ছাড়াও যারা আমাকে সাপোর্ট করছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞ।’

এরপর নিজের শুরুর দিকের লড়াই তুলে ধরেন আরিফা, ‘ছোট বেলা থেকে সখ ছিল একটি স্কুটি কেনার। কষ্ট করে ৯০ হাজার টাকা জমিয়েছিলাম। কিন্তু দেশের এই ক্রান্তিকালে নিজের সখের চেয়ে অসহায় মানুষদের জীবন বেশি গুরুত্ব পায় আমার কাছে। সিদ্ধান্ত নেই কোভিড যুদ্ধে কিছু করার। এরপর স্কুটি কেনার জমানো টাকা দিয়ে শুরু হয় গর্ববতী মায়েদের জন্য কাজ করছি।’

তামিমের উপহার পৌঁছে দিতে আজ বুধবার রংপুর থেকে মিঠাপুকুর ও গাইবান্ধার উদ্দেশ্যে রওনা দেন আরিফা। যাওয়ার আগে ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘আল্লাহ নামে রংপুর থেকে মিঠাপুকুর ও গাইবান্ধা উদ্দেশ্য রওনা দিলাম বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল ভাইয়ের উপহার পৌঁছে দেওয়ার জন্য। সবার দোয়া কামনা করছি।’

পিবি/ব

Facebook Comments